আইন এবং বিধি

কাস্টমস সংশ্লিষ্টঃ

(ক) দি কাস্টমস এ্যাক্ট, ১৯৬৯- এর ১৯৩ নং ধারা অনুযায়ী কমিশনার পদমর্যাদার নিম্নের কোন কাস্টমস কর্মকর্তা কর্তৃক একই আইনের ধারা ৮২ অথবা ৯৮ এর অধীন প্রদত্ত সিদ্ধান্ত বা আদেশ ব্যতিত; এর আইনের অধীন প্রদত্ত সিদ্ধান্ত বা আদেশ দ্বারা কোন ব্যক্তি সংক্ষুব্ধ হলে তিনি উক্ত সিদ্ধান্ত বা আদেশ তাকে অবহিত করার তারিখ হতে ০৩ (তিন) মাসের মধ্যে আপীল কমিশনারেটের নিকট আপীল কারতে পারবেন।

(খ) দি কাস্টমস এ্যাক্ট, ১৯৬৯- এর ধারা- ১৯৪ মোতাবেক কমিশনার (আপীল) এর নিকট আপীল মামলা দায়ের করার সময়ে আপীল কর্তৃপক্ষ অনুমতি প্রদান করলে আপীলটি বিবেচনার পূর্বে এই আইনের অধীন আরোপিত কোন শুল্ক বা অর্থদন্ডের সম্পূর্ণ পরিমাণ অথবা উহার ৫০% নগদ জমা প্রদান এবং অবশিষ্ট ৫০% এর পরিমাণ অর্থ পরিশোধের জন্য ব্যাংক গ্যারান্টি দাখিলের নির্দেশ প্রদান করতে পারবেন।

(গ) বিশেষ ক্ষেত্রে আপীল কর্তৃপক্ষ এইরূপ অভিমত পোষণ করেন যে, দাবীকৃত শুল্ক অথবা আরোপিত অর্থদন্ড জমাকরণ আপীলকারীর জন্য অযথা কষ্টের কারণ হবে তাহলে বিনাশর্তে বা যথোপযুক্ত শর্ত আরোপ সাপেক্ষে উক্ত জমাকরণের প্রয়োজনীয়তা হতে আপীলকারীকে অব্যাহতি দিতে পারবেন।

মূল্য সংযোজন কর সংশ্লিষ্টঃ

(ক) মূল্য সংযোজন কর আইন, ১৯৯১- এর ৪২(১) ধারা অনুযায়ী কমিশনার পদমর্যাদার নিম্নের যে কোন মূল্য সংযোজন কর কর্মকর্তা কর্তৃক প্রদত্ত কোন সিদ্ধান্ত/আদেশ দ্বারা সংক্ষুব্ধ কোন ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান উক্ত সিদ্ধান্ত/আদেশের বিরুদ্ধে, পণ্যের সরবরাহ বা প্রদত্ত সেবার ক্ষেত্রে একই আইনের ধারা ৫৬ এর অধীন প্রদত্ত কোন আটক বা বিক্রয় আদেশ অথবা পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে দি কাস্টমস এ্যাক্ট, ১৯৬৯ এর ধারা ৮২ অথবা ৯৮ এর অধীন প্রদত্ত সিদ্ধান্ত বা আদেশ ব্যতিত, উক্ত আদেশ/সিদ্ধান্ত প্রদানের বা, ক্ষেত্রমত, আদেশ জারির ৯০ (নব্বই) দিনের মধ্যে কমিশনার (আপীল)- এর কাছে আপীল আবেদন দাখিল করবেন। তবে, ধারা ৪২(১ক)(ক) এর শর্তাংশ অনুযায়ি কমিশনার (আপীল) যথেষ্ট কারণ থাকলে উক্ত মেয়াদের পরবর্তী ৬০ (ষাট) দিনের মধ্যে আপিল দায়ের করার অনুমতি দিতে পারবেন।

(খ) মূল্য সংযোজন কর আইন, ১৯৯১ এর ধারা ৪২(২)(ক) অনুযায়ি কমিশনার (আপীল) এর নিকট আপীল দায়ের কালে, দাবীকৃত করের ১০% বা দাবীকৃত কর না থাকলে আরোপিত অর্থদন্ডের ১০% জমা প্রদান করতে হবে।

(গ) মূল্য সংযোজন কর আইন, ১৯৯১ এর ধারা ৪২(৩) এ বর্ণিত বিধান অনুযায়ি কোন সিদ্ধান্ত বা আদেশ সম্পর্কে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্তৃক ধারা ৪৩ এর অধীন কোন কার্যধারা শুরু করার পর সেই সিদ্ধান্ত বা আদেশের বিরুদ্ধে উপরি-উক্ত আইনের অধীন আপীল করা যাবে না।